November 19th, 2015

fb bannarবিশ্বব্যাপী প্রোগ্রামারদের চাহিদা বাড়ছে। আর এখন বোঝা যাচ্ছে, ছোটবেলা থেকে কোডিং-এর ব্যাপারে আগ্রহ তৈরি হলে প্রোগ্রামিং-এ ভাল করা যায়। ২০১৩ সালে দেশে প্রথম বারের মত আওয়ার অব কোড উদযাপিত হয় বেসিসে। গত বছর আমরা সারাদেশের প্রায় ৩০টি স্থানে এই আয়োজন করি। বিশ্ব সাহিত্যে কেন্দ্রের সমাপনী অনুষ্ঠানে আমাদের আইসিটি মন্ত্রী নিজেই একটা কোড লিখে সবাইকে অবাক করে দিয়েছিলেন। প্রতিবছর ৭-১৩ ডিসেম্বর বিশ্বব্যাপী পালিত হয় কম্পিউটার বিজ্ঞান শিক্ষা সপ্তাহ উপলক্ষে  এবছর দেশব্যাপী নানান আয়োজনের উদ্যোগ নিয়েছে বাংলাদেশ ওপেন সোর্স নেটওয়ার্ক (বিডিওএসএন)। বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিল এই আয়োজনের সহ-আয়োজক। এই আয়োজনে সহযোগিতা করছে – ডেফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি, কোডমার্শাল, ইন্টারনেট সোসাইটি বাংলাদেশ, গুগুল ডেভেলপার গ্রুপ বাংলা, গুগল ওম্যান টেকমেকার্স ও দ্বিমিক কম্পিউটিং স্কুল এবং ম্যাগাজিন পার্টনার হিসাবে রয়েছে কিশোর আলো।

এই আয়োজনের উল্লেখযোগ্য অংশ হল – সারাদেশের বিভিন্ন স্থানে আওয়ার অব কোড বা এক ঘন্টার প্রেগ্রামিং-এর আয়োজন। এতে হাইস্কুলের শিক্ষার্থীদের কম্পিউটার প্রোগ্রামিং-এ আগ্রহী করে তোলা হবে। এছাড়া ১১ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত হবে দেশের সবচেয়ে বৃহৎ অনলাইন প্রোগ্রামিং কনটেস্ট। এই প্রতিযোগিতায় তিন সহস্রাধিক প্রোগ্রামার অংশ নেবে বলে আশা করা হচ্ছে।

১২ ডিসেম্বর ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল বিশ্ববিদ্যালয়ে অনুষ্ঠিত হবে ন্যাশনাল গার্লস প্রোগ্রামিং কনটেস্ট। এতে হাইস্কুল ও বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ের মেয়েরা তিনজনের দলে অংশ নিতে পারবে। এছাড়া বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রোগ্রামিং আড্ডা ও প্রোগ্রামিং-এর কর্মশালাও আযোজন করা হবে। ১৫ ডিসেম্বর ঢাকায় আনুষ্ঠানিকভাবে সপ্তাহের সমাপ্তি ঘোষণা করা হবে।

আওয়ার অব কোড

এটি একঘন্টার একটি হাতে কলমে ব্লক-বেসড প্রোগ্রামিঙের হাতে খড়ি। এটি একেবারে নতুনদের জন্য। সারাদেশের গোটা পঞ্চাশেক জায়গায় এটা করার প্ল্যান আছে আমাদের। এজন্য আমাদের টিম ছাড়াও অন্যরাও যোগ দিতে পারে। আয়োজনের জন্য দরকার একটা ক্লাসরুম, একটা ইন্টারনেট সংযোগ সহ ল্যাপটপ এবং প্রজেক্টর।

প্রোগ্রামিং আড্ডা

এটি প্রোগ্রামারদের সঙ্গে হবু প্রোগ্রামারদের একটি আড্ডা। এখানে প্রোগ্রামাররা প্রোগ্রামিং-এর বিভিন্ন সমস্যা এবং তার সমাধান নিয়ে আলাপ করবে। এটি সাধারণত বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ের জন্য। আমরা করবো অন্তত ১০টা।

প্রোগ্রামিং কর্মশালা

এটি প্রোগ্রামিং শেখার জন্য লম্বা সময়ের আয়োজন। আধাবেলা বা পুরা বেলা জুড়ে হবে।

অনলাইন প্রোগ্রামিং কনটেস্ট

অনলাইন প্রোগ্রামিং কনটেস্টের জন্য রেজিস্ট্রেশন ফী’র প্রয়োজন হবে না। হাইস্কুল এবং অন্যান্য এই দুই ক্যাটাগরিতে যে কেও অংশ নিতে পারবে। প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হবে কোডমার্শাল (codemarshal.com) প্ল্যাটফর্মে। প্রতিযোগিতায় প্রথম ১০০ জনকে পুরস্কৃত করা হবে এবং সকল অংশগ্রহণকারীকে ডিজিটাল সার্টিফিকেট দেওয়া হবে। সি/সি++ প্রোগ্রামিং ভাষায় সমসযআর সমাধান করতে হবে। ১১ ডিসেম্বর শুক্রবার বিকেল ৩টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত এই প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হবে।

ন্যাশনাল গার্লস প্রোগ্রামিং কনটেস্ট (এনজিপিসি)
মেয়েদের প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতা হাইস্কুল ও বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাটাগরিতে অনুষ্ঠিত হবে। হাইস্কুলের ২ বা ৩ জনের দল অংশ নিতে পারবে। যে কোন স্কুলের ২-৩জন মিলে দল গঠন করতে পারবে। বিশ্ববিদ্যালয় দল একই বিশ্ববিদ্যালয়ের তিনজন শিক্ষার্থীকে নিয়ে গঠন করতে হবে। ন্যাশনাল গার্লস প্রোগ্রামিং কনটেস্টে রেজিস্ট্রেশন ফী দলপিছু হাইস্কুলে ৫০০ এবং বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ে ১০০০ টাকা। বিজয়ীদের জন্য আর্থিক পুরস্কারেরও ব্যবস্থা থাকবে। ১২ ডিসেম্বর সকাল থেকে ড্যাফোডিল বিশ্ববিদ্যালয়ের সোবহানবাগ ক্যাম্পাসে এই আয়োজন অনুষ্ঠিত হবে। বিকেলেই বিজয়ীদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ করা হবে।

সমাপনী অনুষ্ঠান

আগামী ১৫ ডিসেম্বর কম্পিউটার বিজ্ঞান শিক্ষা সপ্তাহের সমাপনী অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হবে।

প্রশিক্ষক, আয়োজক ও মেন্টরদের জন্য প্রশিক্ষণ


স্থানীয় আয়োজকদের জন্য একটি প্রশিক্ষণের আয়োজন করা হবে।

প্রথম প্রোগ্রামিং আড্ডা

আয়োজনের প্রথম প্রস্তুতিমূলক “প্রোগ্রামিং আড্ডা” আগামী ২১ নভেম্বর শনিবার বেকল ৪টায় বিশ্বসাহিত্য কেন্দ্রে অনুষ্ঠিত হবে।

ইভেন্ট সম্পর্কে বিস্তারিত জানা যাবে www.bdosn.org থেকে। এছাড়া আয়োজনের ব্যাপারে info@bdosn.org এ যোগাযোগ করা যাবে।

 

 

আরও পড়তে পারেন:
গণিত উৎসবের ছবি, লেখা ও পাঁচটি ট্যাব
সায়েন্স কার্নিভ্যাল : বিজ্ঞান জয়ের উৎসব
নেতৃত্ব ও কর্তৃত্ব এবং ইয়ুথলিডারশীপ বুটক্যাম্প
তোমার সন্তান না জাগলে মা সকাল হবে না তো?
প্রোগ্রামিং : শিখতে হবে নিজে নিজেই

Comments

  1. […] কম্পিউটার বিজ্ঞান শিক্ষা সপ্তাহের অং… হিসাবে এই আয়োজন। বিস্তারিত এখানে দেখা যাবে। […]