October 27th, 2015

tech-prep-share

২০২০ সালে বিশ্বে ১০ লক্ষ কম্পিউটার প্রোগ্রামারের পদ খালি থাকবে!

সেই সব পদে কাজ করার মত যোগ্য কর্মী পাওয়া যাবে না বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছে ফেসবুক। গতকাল ফেসবুক কর্তৃপক্ষ প্রোগ্রামার তৈরির ব্যাপারে সচেতনতা, সহায়তা এবং তাদের দক্ষতা বাড়ানোর জন্য একটি নতুন উদ্যোগ চালু করেছে। টেকপ্রেপ নামের এই উদ্যোগের মূল লক্ষ্য হল বিশ্বে কম্পিউটার প্রোগ্রামারের আশু ঘাটতি মোকাবেলা করা। এই উদ্যোগের অংশ হিসাবে চালু হয়েছে প্রোহামিং-এর রসদ আর তথ্য ভান্ডার নিয়ে পোর্টাল
পোর্টালে বলা হয়েছে গাড়ি, মোবাইলফোন কিংবা টেলিঅিশনসহ আমাদের চারপাশেই এখন কম্পিউটারের ছড়াছড়ি। তবে, একটি গোপন রহস্য আছে। প্রত্যেক কম্পিউটারের দরকার প্রোগ্রাম যা কীনা তাদেরকে বলে কী করতে হবে। আর প্রোগ্রামাররা হল যারা নতুন নতুন স্বপ্ন দেখে এবং পরে প্রোগ্রামিং সংকেত লিখে সেটিকে জীবন্ত করে। টেকপ্রেপের উদ্দেশ্য হল প্রোগ্রামিং কী তা সবাইকে বুঝতে সাহায্য করা, প্রোগ্রামারদের কত বৈচিত্রময় কাজ রয়েছে সেটা জানানো এবং সেসব কাজর জন্য একদিন দক্ষতা কেমন করে পাওয়া যাবে সেটাতে সহায়তা করা।
এই উদ্যোগের সূচনা হয়েছে ম্যাক-কিনসের করা একটি গবেষণা থেকে যেখানে দেখা গেছে পিছিয়ে পড়া সম্প্রদায়ের ৭৭% অভিভাবকই জানেন না কেমন করে তাদের সন্তানকে সিএস ডিগ্রী নিতে সহায়তা করবেন।
বিখ্যাত পরামর্শক প্রতিষ্ঠান ম্যাক-কিনসের সঙ্গে অংশিদারিত্বের ভিত্তিতে চারু হওয়া এই উদ্যোগে থাকবে কম্পিউটার প্রোগ্রামার হয়ে ওঠার নানান রিসোর্স যেমন টিউটোরিয়াল, ভিডিও এবং গেমসে যা অভিভাবকদের বোধের বিকাম ঘটাবে। ফলে তারা তাদের ছেলে-মেয়েদের কম্পিউটারে স্নাতক হতে সাহায্য করতে পারবে। যদিও সবার জন্য এই সাইট বানানো হয়েছে তবে ফেসবুকের প্রথম লক্ষ্য স্পেনিম ভাষাভাষীদের মধ্যে প্রোগ্রামিংকে ছড়িযে দেওয়া।
হিস্পানিকদের জন্য হরেও বেশিরভাগ তথ্য এবং রিসোর্স যে কেও ব্যাবহার করতে পারবে। কাজে আমাদের আগ্রহীদের এটা ব্যবহারে কোন সমস্যা নাই।

কয়েকদিন আগে বিডিওএসেনের জন্মদিনে এই বিষয়টাই নিয়ে আলাপ করছিলাম। আগামী কয়েক বছরে কেবল মধ্যপ্রাচ্যেই কয়েক লক্ষ দক্ষ প্রোগ্রামারের প্রয়োজন হবে। এরা যে কেবর সিএসএস আর এইচটিএমএর পারবে তা নয়। এরা প্রোগ্রাম অপটিমাইজ করতে পারবে এবং সেটাতে নতুন উচ্চতায় নিতে পারবে।

আমার ইদানীং  কেন জানি সন্দেহ হচ্ছে আমরা হয়তো কেবল ছুটকা কাজের ফ্রিল্যান্সিং-এর পেছনে ছুটছি। বড় ভবিষ্যত দেখতে পাচ্ছি না। সেটা দেখানো মনে হয় দরকার। একটা বড় সড় উদ্যোগ যদি কেও নিত!!!

আরও পড়তে পারেন:
প্রোগ্রামিং কেন দরকার
কোডিং ও মডেলিং – দুজনে দু’জনার?
আধুনিক কম্পিউটারের জনক ও তাঁর টেস্ট
প্রোগ্রামারদের দিন
প্রোগ্রামিংয়ের আনন্দ: স্কুলের ছেলে মেয়েরা : মুহম্মদ জাফর ইকবাল

Comments

  1. […] আগে লিখেছিলাম ২০২০ সালে কেবল আমেরিকা আর ইউরোপে ১৯ […]

  2. […] অংশ নিয়েছে। কারণ ২০২০ সালে কেবল আমেরিকাতেই ১০ লক্ষ প্রোগ্রামের সংকট […]